One Bangladesh Campaign
লিখেছেন শিব্বির আহমদ, মার্চ ১৮, ২০১৫ ৯:২২ অপরাহ্ণ
Young Economists' Association (YEA), Stamford University Bangladesh এর ৫ম পাবলিক লেকচার শেষে ফটোসেশান। One Bangladesh Campaign এর যাত্রা শুরু।

(Young Economists’ Association (YEA), Stamford University Bangladesh এর ৫ম পাবলিক লেকচার on ‘Towards One Bangladesh’ শেষে ফটোসেশান। One Bangladesh Campaign এর যাত্রা শুরু।)

ব্রিটিশ-পূর্ব বাংলার যতটুকু ইতিহাস জানা যায় এতে এ অঞ্চলের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির ইতিহাস-ই দেখতে পাওয়া যায়। বিভিন্ন পশ্চিমা লেখকদের লেখায় ও এ অঞ্চলকে ‘গোল্ডেন বেঙ্গল’ হিসেবে উদ্ধৃত করা হয়েছে। কিন্তু ব্রিটিশদের দু’শ বছরের লুটপাট এ ‘গোল্ডেন অর্থনীতি’ কে শ্মশানে পরিণত করেছিল। সম্প্রতি নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. অমর্ত্য সেন বললেন, ব্রিটিশদের দু’শ বছরের যতটুকু তথ্য-উপাত্ত পাওয়া যায় এতে দেখা যায় এ অঞ্চলের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ছিল প্রায় শূন্য শতাংশ। ব্রিটিশ বেনিয়াদের এই শোষণ-নিপীড়নের বিরুদ্ধে যারা লড়েছে তিতুমীর, ক্ষুদিরাম, শরীয়তউল্লাহ প্রমুখ তাদের বেশির ভাগই এ ভূমির-ই সন্তান। এ অঞ্চলের মানুষেরা অন্যায়ের সাথে আপোষ করেনি কখনো। ৪৭ এ একবার স্বাধীনতা তারপর পাকিস্তানী সামরিক শাসক গোষ্ঠীর বৈষম্যের বিরুদ্ধে ও লড়েছে এ দেশের আপামর জনতা। ৭১ এ চুড়ান্ত স্বাধীনতা অর্জন। স্বপ্ন ছিল একটি সুখী, সমৃদ্ধশালী ন্যায়ভিত্তিক সমাজ। কিন্তু প্রায় অর্ধশত বছর হতে চলেছে। কি পেয়েছি আমরা? আমাদের সমসাময়িক সময়ে স্বাধীন হওয়া মালেয়শিয়া কোথায় আর আমরা কোথায়? তুলনামূলক সমজাতিক জনগোষ্ঠী নিয়েও আমরা উন্নয়নশীল দেশ আর মালেয়শিয়া বিচিত্র সংস্কৃতির দেশ হয়ে ও উন্নত। এর কারন মালেয়শিয়া তার বৈচিত্র্যের সৌন্দর্য্যকে কাজে লাগিয়ে ঐক্যবদ্ধ মালেয়শিয়া গড়ে তুলেছে আর আমরা আমাদের মধ্যে নতুন নতুন বিভাজন রেখা তৈরি করেছি এবং প্রতিনিয়ত করে যাচ্ছি। কখনো ক্ষুদ্র স্বার্থের মোহে, কখনো বা অহংকার-গোয়ার্তুমির বশে। যা আমাদের ঠেলে দিচ্ছে একটি অস্থিরতার দিকে, অগ্রসরমান গৃহযুদ্ধের দিকে। জাতিগত বা রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা যে অর্থনীতির জন্য মারাত্মক হুমকি তা আর বুঝিয়ে বলার বোধহয় প্রয়োজন নেই। বর্তমান বিশ্বের যে সব দেশে রাজনৈতিক বা জাতিগত অস্থিরতা চলছে সেসব দেশের অর্থনীতির করুন দশা আমরা জানি (তথ্য উপাত্ত দিয়ে কলেবর বড় করার দরকার নেই)। আমরা রাজনীতির নামে, ধর্মের নামে, ভাষার শ্রেষ্ঠত্বের নামে বিভাজন বাড়িয়ে চলছি। এ অবস্থা চলতে থাকলে সহিংসতা বাড়বে, অর্থনীতি পঙ্গু হবে, ক্রমবর্ধমান হারে বাড়বে বেকারত্ব এবং ফলশ্রুতিতে পরিস্থিতির আরো অবনতিই হতে থাকবে। জনগোষ্ঠী ঐক্যবদ্ধ না হলে সামষ্টিক সফলতা অর্জন সম্ভব নয়। রাজনৈতিক অস্থিরতা, জাতিগত বিভেদ, আস্তিক-নাস্তিক দ্বন্ধ, পাহাড়ী-বাঙ্গালী বিরোধ, পাকিস্তানপন্থী-ভারতপন্থী গালি, অসহিষ্ণুতা, একে অন্যকে নির্মূল করার মানসিকতা, রাজনীতিতে ‘উইনারস টেইক অল’ নীতি দেশকে শতধা বিভক্ত করে তুলছে। যার ভবিষ্যত পরিনতি হয়ত আরো ভয়াবহ হয়ে উঠবে। তাই আমরা শুরু করেছি “One Bangladesh Campaign”। যার মুল প্রতিপাদ্য হবে-সাম্য, শান্তি আর ন্যায়ভিত্তিক সমৃদ্ধ সমাজ গঠনের লক্ষ্যে সকল মত, পথ, বর্ণ, গোত্র, ভাষার মানুষের সহনশীল সহাবস্থানের প্রচারাভিযান। একে অপরের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ানো নয় বরং বৈচিত্রের সৌন্দর্য্যকে কাজে লাগিয়ে আগামীর সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তরুনদের উদ্বুদ্ধ করা। আপনি ও আসুন। আপনাদের অবস্থান থেকে “One Bangladesh Campaign” শুরু করুন। এদেশ সবার, এখানে সবাই থাকবে। ঘৃণা নয়, বিদ্বেষ নয়, নির্মূল নয়, নয় কোন চরমপন্থা। এদেশের বাঙ্গালী-পাহাড়ী-বিহারী, হিন্দু-মুসলীম-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান, নারী-পুরুষ-হিজড়া, আওয়ামীলীগ-বিএনপি-জামায়াত-জাতীয় পার্টি সহ সব রাজনৈতিক দল, ধনী-দরিদ্র, মালিক-শ্রমিক, শাদা-কালো, লম্বা-বামুন, হাওড়-বাওড়-উপকুল-পাহাড়-সমতল সব তলের মানুষ, নাক খাড়া-নাক বোঁচা, আস্তিক-নাস্তিক, শাহবাগী-হেফাজতী সকলের সহাবস্থান এবং সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে গড়ে উঠবে বাংলাদেশ। এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

One Bangladesh

One Bangladesh

পোস্টটি ৬৭৩ বার পঠিত
 ০ টি লাইক
৪ টি মন্তব্য
৪ টি মন্তব্য করা হয়েছে
  1. চমৎকার উদ্যোগ। Go ahead ‘One Bangladesh Campaign’ :) .

  2. পোস্ট আর একটা দেখলাম?

    • ইয়ং ইকোনোমিষ্টস’ এসোসিয়েশান এর পক্ষ থেকে ওরা একটা আইডি ওপেন করছে। প্রোগ্রাম গুলোর সামারি লিখবে।

আপনার মুল্যবান মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.