পৃথিবীর দুর্লভ কিছু ফুল
লিখেছেন ওসি সাহেব, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৪ ৮:৩১ অপরাহ্ণ

দিন যত যাচ্ছে পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হচ্ছে বিরল প্রজাতির সব ফুল, পাখি ও প্রাণী৷ যদিও বিশ্বের বেশ কিছু জায়গায় এ মুহূর্তে তাদের বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে৷ এমনই কিছু দুর্লভ ফুলের কথা থাকছে ছবিঘরে৷
আমরফোফালুস টিটানুম:

বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর ফুল বলা হয় এটিকে৷ সবচেয়ে দুর্লভ এবং সুন্দর এই ফুলটি পাওয়া যায় ইন্দোনেশিয়ায়৷ তবে এর গন্ধটা কিন্তু বিকট৷ এর উচ্চতা প্রায় তিন মিটার৷ তাছাড়া মাত্র এক সপ্তাহ পরেই ফুলটি মরে যায়৷ আর এক একটি ফুলের দেখা পেতে অপেক্ষা করতে হয় সাত-আট বছর৷
স্ট্রঙ্গিলোডোন ম্যাক্রোবোট্রিস:

এটি আসলে হালকা সবুজ রঙের একটি লতা৷ এর ফুলগুলো ফিরোজা রঙের৷ তবে এই ফুলগুলোর বৈশিষ্ট্য হলো এগুলোর রং প্রতিদিন পরিবর্তন হয়৷ অর্থাৎ হালকা থেকে গাঢ় হতে থাকে৷ ফিলিপিন্সে পাওয়া যায় দুর্লভ এই ফুল৷
কসমস অ্যাট্রোস্যাঙ্গুয়িনিউস:

এই ফুলটি পাওয়া যায় মেক্সিকোতে৷ প্রায় ১০০ বছর আগে এটি বিলুপ্ত হয়েছিল৷ তখন, অর্থাৎ ১৯০২ সালে এর ক্লোন করা হয়৷ গ্রীষ্মকালে এই ফুল ফোটে৷ এর সুন্দর ঘ্রাণের জন্য একে ‘চকলেট কসমস’ নামেও ডাকা হয়৷
হিবিসকাস কোকিও:

এই ফুলটি কেবল হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জে পাওয়া যায়৷ ১৯৫০ সালে এই ফুলটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছিল৷ এর ২০ বছর পর হঠাৎ কোকিও-র একটি গাছের সন্ধান পাওয়া যায়৷ এর একটি ডাল বেঁচে ছিল, যেখান থেকে পরে কলম বরে ২৩টি চারা গাছ উৎপন্ন করা হয়৷
এপিফিলুম অক্সিপেটালুম:

বাংলাদেশে এই ফুলটি ‘নাইট কুইন’ বা রাতের রানী নামে পরিচিত৷ তবে শ্রীলঙ্কার জঙ্গলে এটা প্রচুর পাওয়া যায়৷ এই ফুলটি কেবল রাতের বেলায় ফোটে বলে এর নাম রাখা হয়েছে রাতের রানী৷ রাত পেরোলেই ফুলটি আর তাজা থাকে না৷
ডেনড্রোফিলিয়াক্স লিনডেনি:
Bildergalerie Die seltensten Pflanzen der Welt

কিউবা আর যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় পাওয়া যায় এই ফুল৷ সাধারণত বন-জঙ্গলেই বেশি ফোটে এগুলো৷ ২০ বছর আগে একে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছিল৷
সেইপ্রিপেডিয়াম কালকাল্স:

এটি একটি জঙ্গলি অর্কিড৷ আগে ইউরোপে এই ফুল প্রায় সব জায়গা্য় দেখা যেত৷ কিন্তু এখন কেবল ব্রিটেনে এই ফুলের দেখা মেলে৷ এই ফুল এখন এতই দুর্লভ যে একটি স্টিকের দাম প্রায় পাঁচ হাজার মার্কিন ডলার৷

Source: dw.de

Comments

comments

পোস্টটি ৪৬০ বার পঠিত
 ১ টি লাইক
৪ টি মন্তব্য