বাণিজ্য মেলার আকর্ষণ লাইবা রুটি মেকার
লিখেছেন ওসি সাহেব, জানুয়ারি ১৬, ২০১৬ ৭:৫২ অপরাহ্ণ
laaibah-ruti-maker-small-6751431418806

 ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় প্রথমবারের মতো স্টল দিয়েছে লাইবা রুটি মেকার ফ্যাক্টরি। দেড় বছরের বাচ্চা থেকে শুরু করে সব বয়সের মানুষ মাত্র ১ সেকেন্ডে সুন্দর গোলাকার রুটি বানাতে পারে এই প্রতিষ্ঠানের যন্ত্রটির সাহায্যে।

 

গৃহিণীর কষ্ট কমাতে কাঠের তৈরি মেশিনটি জাদুকরের মতো ১ সেকেন্ডে রুটি তৈরি করতে পারছে অনায়াসে কোনো ঝামেলা ছাড়াই।

 

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার ৭৮ নম্বর স্টল। ছোট আয়োজন। কিন্তু স্টলটিতে উপচে পড়া ভিড়। সেখানে রুটি বানানো দেখাচ্ছেন মেশিনটির আবিষ্কারক ও মালিক মো. হুমায়ুন কবির।

 

দর্শনার্থী এক তরুণী এগিয়ে গেলেন। ‘লাইবা রুটি মেকার’ যন্ত্রটির হাতল ধরে চাপ দিলেন। যন্ত্রের ভেতর দেওয়া আটার খামি শতভাগ গোলাকার রুটিতে পরিণত হয়েছে! সত্যিই, এক সেকেন্ডের ব্যাপার! দর্শনার্থীদের চোখে বিস্ময়! কী করে সম্ভব হলো— সবার কৌতূহল।

 

 

এরপর শুরু হলো একের পর এক প্রশ্ন। দেশের পণ্য? কে বানিয়েছে? দাম কত?

 

এমন সময় আদাবর থেকে আসা এক গৃহিণী আয়েশা আক্তার প্রতিষ্ঠানটির মালিককে বলতে শুরু করলেন, সেই সকাল থেকে আপনার স্টল খুঁজছি। সাথে করে স্মার্টফোনটিও আনিনি। তাহলে আপনার ওয়েবসাইট থেকে ফোন নম্বরটি নিয়ে সহজেই দোকান খুঁজে পেতাম।

 

আয়েশা আক্তার রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘লাইবা রুটি মেকারের অনেক নাম শুনেছি। অনলাইনে ভিডিও দেখেছি। এটা দিয়ে অনেক সহজেই রুটি তৈরি হয়। তাই আজ নিতে এসেছি।’

 

তিনি বলেন, ‘আমার স্বামী লন্ডনে থাকেন, আমি আগামী মাসে তার কাছে যাব। সেখানে এই রুটি মেকারটি নিয়ে যাব।’

 

হুমায়ুন কবির জানান, দিল্লি অ্যালুমিনিয়ামের জেনারেল ম্যানেজার ইয়াছিন গণি চৌধুরী নিজে এই স্টল থেকে লাইবা রুটি মেকার কিনে নিয়ে গেছেন তার স্ত্রীকে জন্মদিনে উপহার দেওয়ার জন্য।

 

 

এই যন্ত্রটির উদ্ভাবক মো. হুমায়ুন কবির। তার বাড়ি মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার বুনাগাতি গ্রামে। ২০১১ সালে এই যন্ত্র বানানোর কাজে হাত দেন হুমায়ুন। অনেক চেষ্টায় আজকের এই আধুনিক ও পরিবেশবান্ধব রুটি মেকার উদ্ভাবন করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। এরই মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরের সম্মাননা পেয়েছেন এবং পেটেন্ট রেজিস্ট্রেশন করেছেন।

 

কাঠের তৈরি এই যন্ত্রটির বিশেষত্ব তুলে ধরে হুমায়ুন বলেন, ‘লাইবা রুটি মেকার বিশ্বের প্রথম বিদ্যুৎবিহীন পরিবেশবান্ধব রুটি বানানোর যন্ত্র। এই যন্ত্রে অনেক ধরনের রুটি বানানো যায়। আর যেকোনো বয়সের মানুষ এই যন্ত্রের মাধ্যমে দ্রুত রুটি বানাতে পারবেন। কাঠের এই যন্ত্র চালাতে বিদ্যুৎ লাগে না বলে এটা পুরোপুরি সাশ্রয়ী।’

 

তিনি বলেন, ‘বৈদ্যুতিক রুটি মেকারের চেয়ে আমার যন্ত্রে রুটি বানানো সহজ ও সুবিধাও বেশি। তবে আমার যন্ত্র আটা সেদ্ধ করে দেয় না। আর রুটিও ভেজে দেয় না। তবে শতভাগ প্রাকৃতিক স্বাদ অক্ষুণ্ন থাকবে। ফলে দেশে-বিদেশে এর চাহিদা বাড়ছে।’

 

তিনি জানান,  মেলায় আসা বিদেশি দর্শনার্থীরা লাইবা রুটি মেকার দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন এবং প্রশংসা করেছেন। তারা বলেছেন, লাইবা রুটি মেকার এবার মেলার বিশেষ আকর্ষণে পরিণত হয়েছে।

 

হুমায়ুন কবির বলেন, ‘আমাদের ওয়েবসাইট (www.rutimaker.com) আছে। এই ওয়েবসাইটে লাইবা রুটি মেকার সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য পাওয়া যাবে। এ ছাড়া গুগল, ফেসবুক, টুইটার ও ইউটিউবেও ‘Laaibah Ruti Maker’ লিখে খোঁজ করলে বিস্তারিত জানা যাবে।

 

হুমায়ুন কবির আরো বলেন, ‘এ পর্যন্ত মোট গ্রাহকের প্রায় ৩৭ শতাংশই আগে বিদেশি বৈদ্যুতিক রুটি বানানোর যন্ত্র কিনেছিলেন। শেষ পর্যন্ত তারাও লাইবা রুটি মেকার কিনেছেন। বৈদ্যুতিক রুটি বানানোর যন্ত্রে সেদ্ধ আটার রুটি হয় না বলে ওই সব গ্রাহক সন্তুষ্ট ছিলেন না। আমার যন্ত্রে সেদ্ধ আটার রুটিসহ অনেক ধরনের রুটি হয়। গ্রাহকরা অনেক খুশি। তারা আমাকে নিয়মিত ক্রেতা পাঠান।’

 

 

তিনি মডেল ও দাম সম্পর্কে বলেন, ‘লাইবা ব্র্যান্ডের রুটি মেকারের তিনটি মডেল রয়েছে। দ্রব্য, উপকরণ ও মানের বিবেচনায় এগুলোর দামের ভিন্নতা রয়েছে। এগুলোর দাম যথাক্রমে ৩ হাজার ৮৫০ টাকা, ৪ হাজার ৬৫০ টাকা ও ৫ হাজার ৫৫০ টাকা। প্রতিটি মডেলের কার্টনে বিভিন্ন উপকরণ ফ্রি দেওয়া হয়।’

 

ক্রেতারা যাতে নকল পণ্য কিনে প্রতারিত না হন, সে জন্য তিনি পণ্যের প্যাকেট ও ভেতরে যা যা আছে ভালোভাবে দেখে কেনার আহ্বান জানান। কারণ, এই পর্যন্ত অনেকেই তার এই যন্ত্রটি নকল করার চেষ্টা করেছে। তবে গবেষণা জ্ঞানের অভাবে সবাই বিফল হয়েছে। তিনি বলেন, ‘এটি আমার দীর্ঘদিনের গবেষণার ফল।’

 

লাইবা রুটি মেকারের স্মার্ট কার্টনে অন্য যেসব উপকরণ থাকবে সেগুলো হচ্ছে, লাইবা রুটি পেপার : লাইবা রুটি মেকারের রুটি বানানোর পুরো পদ্ধতির সঙ্গে এই পেপার ব্যবহার আবশ্যক। যেকোনো মানের পলিথিন বা পেপার ব্যবহার করলে স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি যেমন থেকে যায়, তেমনি রুটির আকার ঠিক থাকবে না। প্রতি ১৫ দিন পর পর পেপার পরিবর্তন করা আবশ্যক। মেলার জন্য ২০০ বর্গফুটের লাইবা রুটি পেপার (ফুড গ্রেড) ফ্রি দেওয়া হচ্ছে, এর বাজারমূল্য ৭৫০ টাকা।

 

লাইবা রুটি পেপার জাপান থেকে আমদানি করা হয়। প্রতিটি মেশিনের সঙ্গে এক প্যাকেট দেওয়া হয়। এক বান্ডিল লাইবা রুটি পেপার চার বছর পর্যন্ত ব্যবহার করা যায়।

 

ব্যবহারবিধি ও ভিডিও-ডিভিডি : লাইবা রুটি মেকারের কার্টনে ইংরেজি ও বাংলায় লিখিত একটি ব্যবহার বিধিসহ ভিডিও টিউটোরিয়ালের ডিভিডি থাকবে। আর পেপার আটকানোর কাজে ব্যবহার করা যায় এমন একধরনের টেপ দেওয়া হয়।

 

হুমায়ুন কবির বলেন, ‘অনেকে আমার রুটি মেকার দেখে এটি বানিয়েছে। তবে কয়েকটি কাঠের টুকরা এক করলেই এই যন্ত্র বানানো যাবে না। এ জন্য যথাযথ পদ্ধতি ও পরিমাপ জানা প্রয়োজন। নকলবাজরা এসব না জানায় তারা যা বানাচ্ছে, তা দিয়ে রুটি হচ্ছে না; বরং তারা এমন সব উপাদান ব্যবহার করছে, যা খাদ্যের জন্য ক্ষতিকর। এ ছাড়া লাইবা রুটি মেকার রুটি বানানোর জন্য যেসব উপকরণ ও বিক্রয়োত্তর সেবা দেয়, তা নকলবাজরা দেয় না।

 

হুমায়ুন কবির বলেন, ‘কিছু লোভী মানুষ আমার উদ্ভাবিত যন্ত্রটি দেখে মনে করেছে, এটি বানানো বোধ হয় খুব সহজ। তারা এটি বানাতে গিয়ে ধরা খেয়েছে এবং পরে তারা খরচ তুলতে নামমাত্র মূল্যে পণ্য বিক্রির চেষ্টা করছে। তা দিয়ে রুটি হয় না। তাদের বাতিল পণ্য বাজারে লাইবা রুটি মেকারের সুনাম নষ্ট করছে। আর তারা অনলাইনেও প্রচার চালাচ্ছে। এতে ক্রেতারা ঠকছেন এবং বিভ্রান্ত হচ্ছেন।’

 

দুর্নাম ঠেকাতে লাইবা রুটি মেকারের প্রচারকাজ অব্যাহত রয়েছে। স্থানীয় পর্যায়ে বিলবোর্ড, লিফলেট ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ফেসবুক, টুইটার, গুগল প্লাস, ইউটিউবসহ যাবতীয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে লাইবা রুটি মেকারের প্রচার চালানো হয়েছে।

 

হুমায়ুন কবির আরো বলেন, ‘দেশের শীর্ষস্থানীয় সংবাদপত্রগুলোতে আমাকে ও আমার উদ্ভাবিত লাইবা রুটি মেকার নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। টিভিগুলোও আমাকে ঘিরে খবর প্রচার করেছে। সুনাম এক দিনে রচিত হয় না। দুর্নামে সময় লাগে না। গ্রাহকদের কাছে আহ্বান, বিভ্রান্ত হবেন না।’

 

অনলাইনে লাইবা রুটি মেকার সম্পর্কে জানতে প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট (www.rutimaker.com) এবং ফেসবুক পেজ (www.facebook.com/laaibahrutimakerfactory) ভিজিট করার আহ্বান জানিয়েছেন হুমায়ুন কবির।

 

Source: risingbd.com

পোস্টটি ৩৯৯ বার পঠিত
 ০ টি লাইক
০ টি মন্তব্য

আপনার মুল্যবান মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.