কম্পিউটার টিপস(মেইনটেনেন্স)
লিখেছেন মুহাম্মাদ কামরুল, জুলাই ২৭, ২০১৬ ২:৪৪ অপরাহ্ণ

আপনার চার জিবি র‌্যাম, কোর আই থ্রি প্রসেসর এবং উন্ডোজ এইট লাগানো পিসি কি ২০০৪ সালের পেন্টিয়াম ৪ কম্পিউটারের মতন স্লো চলছে? কিংবা একটু ভারী কাজ করলেই কি পিসি হ্যাং হয়ে যাচ্ছে? হয়ে থাকলে কয়েকটা কাজ করে দেখতে পারেন:

১) আপনার উইন্ডোজ ফোল্ডার যে ড্রাইভে আছে(সাধারনত সি ড্রাইভ), সে ড্রাইভ এ কতটুকু খালি যায়গা আছে দেখুন; খেয়াল রাখবেন যেন অন্তত ৫ জিবি জায়গা খালি থাকে।

২) আপনার ডেস্কটপে কোনো ফাইল রাখবেন না। যেমন অডিও, ভিডিও, ডকুমেন্ট, ছবি ইত্যাদি। ডেস্কটপটা যথাসম্ভব ফাঁকা রাখুন। কেবল দরকারি প্রোগ্রামগুলোর সর্টকাট আইকন ডেস্কটপে রাখা যেতে পারে।

৩) যেসব প্রোগ্রাম আপনি ব্যাবহার করেন না, কিন্তু কম্পিউটারে ইন্সটল করা আছে, সেগুলো আনইন্সটল করে দিন। এর জন্য উইন্ডোজের Programs and features প্রোগামটি ব্যাবহার করতে পারেন। এটি Control Panel এর Programs এ পাবেন। উইন্ডোজ ৮ এ অপশনটি পাওয়া যাবে: start > settings > system > Apps and features এ গেলে। এরপর দেখে দেখে বেদরকারি অ্যাপ এ ক্লিক করুন এবং Uninstall বাটন চাপুন। এরপর যা আসে তা ঠিকভাবে সম্পন্ন করুন।

৪) CCleaner বা এরকম কোনো সফটওয়্যার দিয়ে কম্পিউটারের ফাইল ও রেজিস্ট্রি ক্লিনআপ করুন।

৫) উইন্ডজের নিজস্ব ক্লিনাপ টুল Disk Cleanup দিয়ে সি ড্রাইভটি পরিস্কার করুন। প্রথমে সি ড্রাইভে রাইট বাটন ক্লিক করে Properties এ যান। তারপর সেখানে সবগুলো চেকবক্স সাইন দিয়ে Ok তে ক্লিক করুন। একটি উইন্ডো আসতে পারে, আসলে delete files এ ক্লিক করুন। এটা শেষ হলে আবার সি ড্রাইভে রাইট বাটন ক্লিক করে Properties এ যান। এরপর নিচে বামদিকে Cleanup system files এ ক্লিক করুন। কিছুক্ষন অপেক্ষা করতে হতে পারে। নতুন উইন্ডো আসবে। সেখানের সবগুলো চেকবক্স সাইন করুন। এরপর তার উপরের দিকে more options এ ক্লিক করুন। দেখুন নিচের দিকে System restore and Shadow copies নামে একটা বক্স আছে; ওটার নিচে Clean up বাটনে ক্লিক করুন। একটি উইন্ডো আসবে, Delete এ ক্লিক করুন। এরপর  একদম নিচে ok বাটনে ক্লিক করুন। নতুন উইন্ডো আসলে delete files এ ক্লিক করুন।

উপরের সবগুলো ধাপ সম্পন্ন করতে পারলে কম্পিউটার একবার রিস্টার্ট করে দেখুন কোনো উন্নতি হলো কিনা।

এতকিছুর পরও সমস্যার সমাধান নাও হতে পারে। কারন মূল সমস্যা যদি ভাইরাস এর কারনে হয় তবে উপরের পদ্ধতি কোনো কাজে আসবে না। সেক্ষেত্রে উইন্ডোজ নতুন করে ইন্সটল করা উচিত। আর নতুন উইন্ডোজ দেয়ার পরপরই একটি আপডেটেড অ্যন্টিভাইরাস ইন্সটল করা অথবা অ্যন্টিভাইরাস ইনস্টল করে তা আপডেট করে নেওয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ।

পোস্টটি ৬১৯ বার পঠিত
 ০ টি লাইক
৪ টি মন্তব্য

Leave a Reply

4 Comments on "কম্পিউটার টিপস(মেইনটেনেন্স)"

Notify of
Sort by:   newest | oldest | most voted
প্রশান্ত চিত্ত
Member

কাজের পোষ্ট … ধন্যবাদ!

লাল নীল বেগুনী
Member

দরকারী পোস্ট…

wpDiscuz