প্রতিদিন সকালে ১ গ্লাস মধু পানির ৭টি দারুণ উপকারিতা
লিখেছেন চক সিলেট, নভেম্বর ১৭, ২০১৪ ১১:২০ অপরাহ্ণ

প্রাচীন কাল থেকেই ঔষধ হিসেবে মধু ব্যবহার হয়ে আসছে। নানা রোগের নিরাময় এবং কাটাছেঁড়া দ্রুত সারিয়ে তোলার কাজেও ব্যবহার হতো মধু। তাই প্রতিদিন খানিকটা মধু খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ভালো একটি কাজ।
রোজ সকাল বেলা এক গ্লাস মধুপানি আপনার দিনটিকে মধুরতা দিয়ে শুরু করবে। শুধু তাই নয়। এই একগ্লাস মধু পানি আপনার শরীর ও স্বাস্থ্যের ওপর ফেলবে দারুণ চমৎকার প্রভাব। জানতে চান সেই অসাধারণ স্বাস্থ্য উপকারিতাগুলো? চলুন তবে জেনে নেয়া যাক।

১।ওজন কমাতে সাহায্য করেঃ

প্রতিদিন সকালে ১ গ্লাস কুসুম গরম পানিতে ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে পান করার অভ্যাস করলে দ্রুত ওজন কমে। মধু হচ্ছে প্রাকৃতিক চিনি যা আমাদের দেহে এনার্জির সরবরাহ করে এবং হজম প্রক্রিয়া উন্নত করে। এতে করে মুটিয়ে যাওয়ার ভয় কম থাকে। এছাড়াও মধু পানি জমে থাকা চর্বি দূর করতে সহায়তা করে থাকে।

২।অ্যাসিডিটির হাত থেকে রক্ষা করেঃ

প্রতিদিন ১ গ্লাস মধু পানি পান করলে অ্যাসিডিটির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। মধুর অ্যান্টিসেপ্টিক গুণ পাকস্থলীর মিউকাসের নিঃসরণ ঘটায় যা জ্বালাপোড়া মুক্ত করে। এছাড়াও মধু পানি আমাদের কোলন ও ইনফিউসকে হাইড্রেট রাখতে সহায়তা করে।

৩।রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ

প্রতিদিন ১ গ্লাস মধু পানি খাওয়ার অভ্যাস দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। মধুর অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান দেহকে ভেতর থেকে সবল করে তোলে এবং যেকোনো ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে দেহকে তৈরি করে।

৪।অ্যালার্জিমুক্ত থাকতে সহায়তা করেঃ

প্রতিদিন ১ গ্লাস মধু পানি অ্যালার্জির সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। প্রতিদিন সকালবেলা এক গ্লাস মধু পানি পানের ফলে দেহের পোলেন অংশগুলো যেসকল স্থানে অ্যালার্জির সংক্রমণ বেশি হয় সেসকল স্থানে একধরণের প্রতিরক্ষা পর্দার সৃষ্টি হয় যা সংবেদনশীলতা কমায় ও অ্যালার্জির যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেয়।

৫।পেটে গ্যাসের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করেঃ

গ্যাসের সমস্যা হলে একধরণের অস্বস্তি কাজ করতে থাকে যা দূর করতে পারে মধু পানি এক নিমেষেই। গ্যাসের সমস্যা শুরু হলে ১ চামচ মধু ১ গ্লাস পানিতে মিশিয়ে পান করে ফেলুন। এটি পেট ঠাণ্ডা করবে এবং গ্যাসের সমস্যা দূর করবে।
৬।দুর্বলতা কাটিয়ে দেহে তাৎক্ষণিক এনার্জি সরবরাহ করেঃ

যদি দুর্বলতা অনুভব করে থাকেন তাহলে অনেক সময় তা দেহে সুগারের মাত্রা কমে গেলে অনুভূত হয়। অনেকে এই সময় এনার্জি ড্রিংক নামক বিষ পান করে থাকেন। এর পরিবর্তে যদি ১ গ্লাস মধু পানি পান করে ফেলেন তবে আপনি তাৎক্ষণিকভাবে এনার্জি পাবেন, দুর্বলতা কেটে যাবে এবং দেহ থাকবে সুস্থ।
৭।হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখেঃ

এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে মধু মিশিয়ে পান করলে এটি দেহে ভালো কলেস্টোরলের মাত্রা বাড়িয়ে তোলে এবং কার্ডিওভাস্কুলার সমস্যা থেকে দূরে থাকতে সহায়তা করে।

সুত্রঃ স্বাস্থ্য তথ্য

পোস্টটি ৬৯৪ বার পঠিত
 ১ টি লাইক
৬ টি মন্তব্য
৬ টি মন্তব্য করা হয়েছে
  1. কিন্তু খাঁটি মধু পাওয়া যে বড়ই দুষ্কর!! :(

  2. এত নিয়ম মানতে ভাল্লাগেনা :/

  3. একটু নিয়ম মেনে যদি অনেক বড় ঝামেলা থেকে বাঁচা যায়, খারাপ কি? অবশ্য একটা বয়সে, নিয়ম ভাংতে পারাটাই বাহাদুরি!
    কাজের পোস্ট। ধন্যবাদ

আপনার মুল্যবান মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.