ঝটপট ওজন কমাতে রাতের বিশেষ খাবার ‘দই-ফল
লিখেছেন চক সিলেট, আগস্ট ২৬, ২০১৪ ১:০২ পূর্বাহ্ণ

 

ওজনটা নিয়ে অনেকেই বেশ বিপাকে আছেন। ওজন যত সহজে বাড়ে তত সহজে কমে না। কঠিন ডায়েট চার্ট, দীর্ঘ সময় ব্যায়াম করে ঘাম ঝরানোর কাজটাও খুবই কঠিন। তাই ওজন কমানোর ইচ্ছে থাকলেও কমানো হয়ে ওঠে না। যারা চট জলদি ওজন কমাতে চান একেবারে কষ্ট ছাড়াই তারা রাতের খাবারের মেন্যুটা একটু বদলে ফেলুন। রাতের খাবারে অন্য সব খাবার বাদ দিয়ে শুধু দই ফল খাওয়ার অভ্যাস করলে খুব সহজেই কম সময়ে আপনার ওজন কমে যাবে অনেক খানি। টক দইয়ের সাথে নানান ফলের মিশ্রণে তৈরি এই খাবারটি একই সঙ্গে পুষ্টিকর ও সুস্বাদু।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব তিনিসি এর গবেষক প্রফেসর মাইকেল এর মতে, আপনি প্রতিদিন আড়াইশ গ্রাম দই খেতে পারলে এক মাসের মধ্যে কোমরের মাপ এক ইঞ্চি কমিয়ে ফেলতে পারবেন। গবেষণায় আরো জানা গেছে যে যারা ডায়েট করে ওজন কমানোর চেষ্টা করেন করেন তাদের তুলনায় যারা নিয়মিত দই খান তাদের শরীরের ওজন ২২% কমে যায় এবং পেটের মেদ ৮১% কমে যায়। এই গবেষণার গবেষক মাইকেল জানান যে যাদের ওজন বেশি তাদের শরীরের ফ্যাট কোষ থেকে কর্টিসল নামের একটি হরমোন তৈরী হয়। এটি কোমর এবং পেটের চারপাশের মেদ বাড়িয়ে দেয়। দইয়ের অন্যতম উপাদান ক্যালসিয়াম কর্টিসল তৈরীতে বাঁধা দেয়। দইয়ের অ্যামিনো এসিড ফ্যাট কমিয়ে শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে।

নিয়মিত দই ফল খাওয়ার অভ্যাস করলে আপনার শরীরে প্রয়োজনীয় পুষ্টিরও কোনো অভাব হবে না। কারণ নিয়মিত দই ফল খেলে ফলমূল থেকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও ফাইবার গ্রহণ করবে শরীর। এছাড়াও টক দইয়ে প্রচুর পরিমাণে ফসফরাস, পটাসিয়াম, রিবোফ্লাভিন, ভিটামিন বি৫, বি১২’সহ আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান আছে যা শরীরের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

প্রতিদিন একই ফল দিয়ে দইফল খেতে হবে এমন কোনো কথা নেই। যেই ঋতুতে যেই ফল পাওয়া যায় সেটা দিয়েই তৈরি করে ফেলতে পারেন দই ফল। মাত্র তিন চার রকমের ফল ঘরে থাকলেই আপনি দই ফল প্রস্তুত করতে পারেন। তবে কলা, আপেল, নাশপতি, কমলা, স্ট্রবেরি, আম, পেপে ইত্যাদি ফল দিয়ে দই ফল প্রস্তুত করলে খেতে সুস্বাদু হয়। জেনে নিন দই ফল প্রস্তুত করার সহজ প্রণালীটি।

= উপকরণ:
টক দই ২৫০ গ্রাম
৪/৫ প্রকারের যে কোনো মৌসুমি ফল (ছোট করে কাটা)
কাজু/পেস্তা বাদাম ১/৪ কাপ

= প্রস্তুত প্রণালি:

– টক দই হালকা করে ফেটে নিন।
– একটি পাত্রে কিছু কেটে রাখা ফল রাখুন। ফলের উপর ফেটানো দই ঢেলে দিন। এবার দইয়ের উপর আবার কেটে রাখা বাকি ফল গুলো দিয়ে দিন।
– সব শেষে বাদাম ছিটিয়ে দিন।
– ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন মজাদার দই ফল।

সূত্রঃ স্বাস্থ্য তথ্য

পোস্টটি ২২৫ বার পঠিত
 ০ টি লাইক
১ টি মন্তব্য
একটি মন্তব্য করা হয়েছে
  1. খুব ভালো জিনিষ। কিন্তু প্রতিদিন এতো দই কে এনে দিবে! :(

আপনার মুল্যবান মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.