চলতি পথেই ফোন চার্জ
লিখেছেন চক সিলেট, অক্টোবর ২৯, ২০১৪ ৬:৫৫ অপরাহ্ণ

স্মার্টফোনে চার্জ থাকেনা, এই সমস্যার সমাধান দেবে পোর্টেবল চার্জার। কৃতজ্ঞতা: এক্সেল টেকনোলজিস, ছবি: নকশা

 

 

চার্জ ফুরিয়ে যাচ্ছে স্মার্টফোনটির, লালবাতি জ্বলে গেছে। অথচ ঠিক এখনই আপনার জরুরি ফোন আসার কথা। নাহ, উদ্ভ্রান্ত হয়ে চার্জার পয়েন্ট খুঁজতে হবে না। পকেট থেকেই বের করুন চার্জার। বৈদ্যুতিক সংযোগও লাগবে না। বহনযোগ্য (পোর্টেবল) চার্জারের সঙ্গেই সরাসরি যুক্ত করে দিন ফোনটি। স্মার্টফোন বা ট্যাবলেটের জন্য পাওয়া যাচ্ছে নানা রকম বহনযোগ্য চার্জার। পাওয়ার ব্যাংকও বলা হয় এগুলোকে।
এসব চার্জারের মধ্যে ব্র্যান্ড ও ননব্র্যান্ডের দুটিই বাজারে পাওয়া যাবে। জেনে নিন মডেল ও দামদর।
জিনিয়াস: দাম দুই হাজার থেকে চার হাজার টাকা। 
টিপিলিংক: পিবি ১০৪০০, দাম দুই হাজার ৫০০ টাকা।
অ্যাপাসার: বি ১২০, দাম এক হাজার ৭০০ এবং বি১ ১০, দাম এক হাজার ৩০০ টাকা। 
গেডমি: এলিট পি ১০ মডেল, দাম দুই হাজার ৬৫০ টাকা।
এ–ডেটা: পিভি ১০০, দাম এক হাজার ৫৫০ টাকা এবং পিভি ১১০, দুই হাজার ৫০০ টাকা। 
ডিলাক্স: এমপি-০২ ৬০০০এমএএইচ। দাম এক হাজার ৬৫০ থেকে দুই হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে। 
এমআই: দাম দুই হাজার ২০০ টাকা। 
এ ছাড়া ইউনিভার্সেল, উইনডি, আল্ট্রা ইত্যাদি ব্র্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক বাজারে পাওয়া যাবে ৫০০ থেকে এক হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে।
ব্যবহার:
 বহনযোগ্য চার্জারটি আপনি আপনার ডেস্কটপ কম্পিউটার বা ল্যাপটপে ইউএসবি কেবল দিয়ে পুরোপুরি চার্জ দিয়ে নিতে হবে।
 বহনযোগ্য চার্জারে আপনি একবার চার্জ দিয়ে নিলে আপনার স্মার্টফোন বা বহনযোগ্য যেকোনো যন্ত্রে প্রায় চার থেকে পাঁচবার চার্জ দিতে পারবেন। তবে মডেল অনুযায়ী এর ভিন্নতা হতে পারে।
 পাওয়ার ব্যাংক বহনযোগ্য চার্জারের সাহায্যে মোবাইল ফোন, ট্যাবলেট, আইপড, এমপি ফোরসহ বহনযোগ্য ডিজিটাল যন্ত্রগুলো চার্জ করা যাবে।
কোথায় পাবেন:
ঢাকার বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সের প্রথম তলায় ও সাততলায়, প্রগতি সরণির যমুনা ফিউচার পার্কের চতুর্থ তলায়, আগারগাঁওয়ের বিসিএস কম্পিউটার সিটি, ইস্টার্ন প্লাজার পাঁচতলায়, এলিফ্যান্ট রোড ম্যাল্টিপ্ল্যালান সেন্টারসহ বিভিন্ন কম্পিউটার বাজারে।

সূত্রঃ প্রথম আলো ।

পোস্টটি ২৫৪ বার পঠিত
 ০ টি লাইক
০ টি মন্তব্য

আপনার মুল্যবান মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.