শাসন বনাম অনুশাসন
লিখেছেন অঘটন ঘটন পটীয়সী, অক্টোবর ২০, ২০১৬ ৪:২৭ অপরাহ্ণ
Food-Allergies-in-Children31

কারো বাসায় বেড়াতে গেলে বা কেউ বেড়াতে আসলে প্রায়ই কোমলমতি কিছু শিশুদের পাওয়া যায়।একেক শিশু স্বভাবতই একেকরকম হয়।
কিছু বাচ্চাকে দেখা যায় মেহমান দেখলে বা কারো বাসায় বেড়াতে গেলে খাবারের টেবিলের কাছে আসতেই লজ্জা পায়,কিছু আছে যারা লজ্জা পায়না বরং তার আশেপাশে ঘুরাঘুরি করে মায়ের ইতিবাচক সাড়া চায়,আবার কেউ কেউ কোন কিছুকে তোয়াক্কা না করে টেবিলে বসে খাওয়া শুরু করে দেয়।
এদের মধ্যে ঠিক কোন মডেলটা ভালো এটা বলা মুশকিল। যথারীতি একেক মায়েদের একেকটা মডেল পছন্দ হতে পারে।
খাবারের টেবিলে বা অন্য কারো সামনে কেমন আচরন হবে তা নির্ভর করছে শাসন এবং অনুশাসনের উপর।
বাবা-মা বাচ্চার আচরন নিয়ে উদাসীন হলে সচরাচর তারা মেনার শিখে না।ফলে অনেক সময়ই মেহমানের সামনে লজ্জিত হতে হয় মায়েদের।
আবার বেশি শাসন মানেই ভীতি।সুতরাং বাচ্চার খেতে ইচ্ছে করছে কিন্তু ভয়ে কিছু নিচ্ছে না,কেউ শাধলেও মায়ের দিকে বারবার তাকাচ্ছে।এখানেও ইমবেরাস হতে হয় মায়েদের।
আর যেখানে অনুশাসন থাকছে অর্থাৎ বাচ্চার আচরন কেমন হবে তা গঠনমূলক ভাবে বাবা-মা বুঝিয়ে দিচ্ছেন সেখানে তারা খাবার টেবিলে একটু লাজুক থাকে,তবে তাদের কিছু দিলে তারা গ্রহন করে ।এরকম বাচ্চারা সচরাচর আদর পেয়ে থাকে খুব।
আর ভীতু বাচ্চারা পায় করুনা।আর যারা খাবার টেবিলের আদবটাই রপ্ত করতে পারেনা সাধারনত তাদের উপর মানুষ বিরক্ত প্রকাশ করে থাকে।

সুতরাং, আপনার শিশুকে শাসন করবেন কিনা অনুশাসন শিখাবেন তা আপনাকেই ঠিক করতে হবে।

পোস্টটি ৫১২ বার পঠিত
 ১ টি লাইক
০ টি মন্তব্য

আপনার মুল্যবান মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.